কলেজ শিক্ষককে গুলি করে হত্যা, মোটরসাইকেল ছিনতাই

নাটোর করেস্পন্ডেন্ট
টাইম নিউজ বিডি,
১২ জানুয়ারি, ২০১৭ ১৪:৫৯:৫০
#

নাটোরের লালপুরে এক কলেজ শিক্ষককে গুলি করে হত্যা করে তাঁর মোটরসাইকেল নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। আজ বৃহস্পতিবার বেলা পৌনে একটার দিকে এ ঘটনা ঘটে।


নিহত শিক্ষকের নাম মোশাররফ হোসেন (৩৮)। তিনি লালপুরের মোহরকয়া ডিগ্রি কলেজের বাংলা বিভাগের শিক্ষক ছিলেন। তাঁর বাড়ি রাজশাহীর বাঘা উপজেলার পীরগাছা গ্রামে। তাঁর বাবার নাম মোহাম্মদ আলী প্রামাণিক।


কুষ্টিয়ার ভেড়ামারার ট্রাকচালক সুজন আলী (২৫) রাজশাহী থেকে বাড়িতে ফিরছিলেন। তিনি তাঁর গাড়িতে করে মোশাররফকে ঘটনাস্থল থেকে তুলে বাঘা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। সুজন আলী জানান, তিনি রাজশাহীতে মাল নামিয়ে ভেড়ামারায় ফিরে যাচ্ছিলেন। বাঘা থানার সীমানা পার হয়ে লালপুরের পুলিশ বক্সের সামনে গিয়ে দেখেন অনেক মানুষ সেখানে জটলা করে আছেন। মাঝখানে একজন মানুষ পড়ে রয়েছেন। কেউ তাঁকে তুলে আনছেন না দেখে তিনি গাড়ি ঘুরিয়ে তাঁকে তুলে হাসপাতালে নিয়ে আসেন। তখন বেলা পৌনে একটার মতো বাজে। ট্রাকে তোলার সময় তিনি বেঁচে ছিলেন কি না, তা বুঝতে পারেননি।


মোশাররফের সহকর্মী রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক জহুরুল ইসলাম বলেন, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তিনি এবং মোশাররফ হোসেন প্রায় একই সঙ্গে কলেজ থেকে বাড়ির উদ্দেশে বের হওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। মোশাররফকে রেখে তিনি কয়েক মিনিট আগে কলেজ থেকে বের হন। বাঘায় এসে তিনি খবর পান বাঘা থানার সীমান্ত থেকে লালপুরের দিকে প্রায় এক কিলোমিটার ভেতরে বাদলিবাড়ি গ্রামে পুলিশ বক্সের সামনে মোশাররফকে গুলি করে করে দুর্বৃত্তরা তাঁর মোটরসাইকেলটি নিয়ে গেছে।


বাঘা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক জহুরুল ইসলাম জানান, তাঁর বাঁ বগলের নিচে গুলি লেগেছে। গুলির আঘাতেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে তাঁরা ধারণা করছেন।


বাঘা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলী মাহমুদ বলেন, ঘটনাস্থল বাঘা থানার সীমান্ত থেকে লালপুরের প্রায় এক কিলোমিটার ভেতরে। পুলিশ বক্সের সামনে।


লালপুর থানার ওসি আবু ওবায়েদ বলেন, তাঁরা খবর পেয়েছেন। ঘটনাস্থলে তাঁরা পুলিশ পাঠিয়েছেন। কলেজশিক্ষকের মোটরসাইকেল ছিনতাই হওয়ার ঘটনা শুনেছেন। বিস্তারিত পরে জানাতে পারবেন।


জারিফ


 

Print